মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১st জুলাই ২০২২

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর টেকনাফ ব্যাটালিয়ন কর্তৃক ১,২১,৮০,০০০/- (এক কোটি একুশ লক্ষ আশি হাজার) টাকা মূল্যের বার্মিজ মালামাল ও ১টি ট্রাকসহ ৩ জন আটক।


প্রকাশন তারিখ : 2022-07-01
গত ৩০ জুন ২০২২ তারিখ রাতে বিজিবি'র টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ হোয়াইক্যং বিওপি’র একটি টহলদল হোয়াইক্যং চেকপোষ্টে নিয়মিত তল্লাশী কার্যক্রম পরিচালনা করছিল। টেকনাফ হতে কক্সবাজারগামী একটি ট্রাক হোয়াইক্যং চেকপোষ্টের নিকট আসলে তা তল্লাশীর জন্য থামানো হয়। পরবর্তীতে উক্ত ট্রাকটি তল্লাশীকালীন চালক ও মালামালের মালিক মোঃ ইয়াছিন আরাফাত (২৮), হেলপার মোঃ নুরুল আলম (৫৫) এবং সিএন্ডএফ এজেন্ট মোঃ আব্দুল্লাহ (৩৮)-এর আচরণ সন্দেহজনক হওয়ায় তাদের পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তল্লাশী এবং জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তল্লাশীর সময় সরকারী কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বহনকৃত ৭১,৬৯,০০০/- (একাত্তর লক্ষ ঊনসত্তর হাজার) টাকা মূল্যমানের রীচ কফি-৫৬৬ প্যাকেট, থামি টু পার্ট-১৩৬ সেট, থামি সিঙ্গেল পার্ট-২২৫ পিস, বেবী সেট-৯০ সেট, তেতুঁল আচার-০২ বস্তা, সুপারী-২,১৫০ কেজি, নুডলস-১৫ বস্তা, শুটকী-৪,২০০ কেজি, লাপাচু-৫০ বস্তা জব্দ করতে সক্ষম হয়। অবৈধভাবে চোরাচালানী মালামাল বহনের দায়ে ৫০,০০,০০০/- (পঞ্চাশ লক্ষ) টাকা মূল্যমানের বর্ণিত ট্রাকটিও আটক করা হয়। আটককৃত চালক (মালামালের মালিক), হেলপার এবং সিএন্ডএফ এজেন্ট’কে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, উক্ত মালামালগুলি অবৈধভাবে মায়ানমার হতে বাংলাদেশে পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছে মর্মে স্বীকার করে। উল্লেখিত মালামালের কোন বৈধ কাগজপত্র না থাকায় এবং সরকারী কর/শুল্ক ফাঁকি দিয়ে চোরাচালানী মালামাল বহনের দায়ে উক্ত ব্যক্তিদের মালামাল এবং ট্রাকসহ আটক করা হয়। এছাড়াও আটককৃত আসামীদের নিকট হতে ১১,০০০/- (এগার হাজার) টাকা মূল্যমানের ০৪টি মোবাইল ফোনও জব্দ করা হয়।
উল্লেখ্য, উদ্ধারকৃত চোরাচালানী মালামাল, ট্রাক, ও মোবাইল ফোন টেকনাফ শুল্ক কার্যালয়ে জমা করতঃ আটককৃত তিনজন আসামীকে নিয়মিত মামলার মাধ্যমে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।
May be an image of 5 people
 
 
 
 
 
 

 

 
 
 
 
 
 

Share with :

Facebook Facebook